সৎকার করতে এগিয়ে আসা মানবিকতার পাঁচ হিরোর গল্প

    সৎকার করতে এগিয়ে আসা মানবিকতার পাঁচ হিরোর গল্প

    সৎকারের অভাবে রাস্তায় পড়েছিলো প্রমোদ মজুমদারের লাশ দীর্ঘ পাঁচ ঘন্টা পর সৎকারে এগিয়ে এসেছে মানবিকতার হিরো দুই মুসলিম ও তিন হিন্দু যুবক। ২৩ মার্চ ২০২০ নোয়াখালী সদর উপজেলার ১১ নং নেয়াজপুর ইউনিয়নের উত্তরে দাস পাড়া, কোনার বাড়ির প্রমোদ মজুমদার নামে এক হিন্দু ভাই করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করে পড়ে ছিলো রাস্তায়। নোয়াখালী জেলার চৌমুহনীতে কোন এক ব্যানিজক প্রতিষ্ঠানে ক্যাশিয়ার হিসাবে চাকুরি করতেন। তিন দিন অাগে জ্বর নিয়ে উনি বাড়িতে এসেছিলেন, অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎস্যাকের কাছে নেওয়ার পথেই রাস্তায় মৃত্যুবরণ করে। পরবর্তীতে প্রশাসন কে খবর দেওয়া হলে সিভিল সার্জন অফিস থেকে লোকজন এসে নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যায় এবং সৎকার করার জন্য বলে যায়। কিন্তু করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উপসর্গ থাকার কারণে আশেপাশে উনার ছেলে ও স্ত্রী ছাড়া, সবাই যাওয়া পর্যন্ত বন্ধ করে দিয়েছে! অনেকেই ভয় পাচ্ছিল যে কাছে আসলেই করোনা আক্রান্ত হবে। এমনটাই আমরা অবগত হয়েছিলাম মোঃ আজম খান নামে ভুলুয়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফেইসবুকে পোস্ট থেকে।

    ইতিমধ্যে নোয়াখালী পেইজের কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা কডিনেটর বিজয় দেবনাথের কাছে অনুরোধ আসে নোয়াখালী পেইজের পক্ষ থেকে এগিয়ে এবং পরে প্রধান সম্মনয় মোসলেমুল হাকিম জুয়েল এর তত্ত্বাবধানে খুব দ্রুত বিষয়টি প্রচারণায় আসে এবং আহ্বান জানানো হয় কেউ সহযোগিতা করতে চাইলে এগিয়ে আসার জন্য। এরি মধ্যে নোয়াখালী পেইজের পক্ষ (১) প্রসনজিত মজুমদার রেডি হয়ে সাথে এগিয়ে আসে। কিছু সময় পর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে আমাদের ফোন করে নিশ্চিত করা হয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তথ্য অনুযায়ী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ব্যক্তিকে দুই ঘন্টা পর নর্মালি সৎকার করা যায়, মূলত এটা শুনেই সাহস দ্বিগুণ হয়ে যায় আমাদের।

    তারপরে নোয়াখালী পেইজের পোস্ট দেখে ড.বশির আহমেদ কলেজের প্রিন্সিপ্যাল (টিম উপদেষ্টা রেড লাভ বিডি) জনাব নজরুল ইসলাম সৎকারের জন্য সদর ধর্মপুর থেকে পাঠিয়েছেন (২) গোলাম আলমগীর জাকারিয়া কে, তারপর এগিয়ে আসে নেয়াজপুর ইউনিয়নের সন্তান বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য (৩) মো: নজরুল ইসলাম নিপুবং এর পরে এগিয়ে এসেছে নেয়াজপুর ইউনিয়নের হিন্দু মহাজোটের পক্ষ থেকে আরো দুইজন সদস্য ৪) বিক্রম মজুমদার ৫) পিংসু ভৌমিক

    প্রমোদ মজুমদার মৃত্য দেহ দীর্ঘ পাঁচ ঘন্টা রাস্তায় পড়ে থাকার পর এই পাঁচ জন সুপার হিরোর নেতৃত্বে সৎকারের কাজটি সম্পন্ন হয়েছে। সব শেষ করে ক্লান্ত শরীরে দীর্ঘ পথ হেঁটে এসে ধর্মপুরের হিরো গোলাম আলমগীর জাকারিয়া বাড়ি ফিরে যাওয়ার জন্য কাশেম বাজারে দুই ঘন্টা বসে থাকার পর, দেখা আরেক হিরো পেশায় রিক্সা ড্রাইভারের সাথে পিপিই আর সৎকারের কথা শুনে মানুষটি ভাড়া পর্যন্ত নেয়নি এবং চেষ্টা করেও এক কাপ চা খাবাতে পারেনি।

    Top